Menu

শপিং মলের কোন লাইনটা আগে শেষ হবে – বুঝবেন কিভাবে? Best research tips

আপনি ৫০টাকার বাজার করে ৫০ মিনিট লাইনেই দাঁড়িয়ে আছেন, সুপারমার্কেটগুলোর এমন চিত্র এখন সাধারণ ব্যাপার। বিশাল কোন লম্বা লাইনের পেছনে দাঁড়িয়ে অসহায়ভাবে অপেক্ষায় থাকতে কারই বা ভালো লাগে ! তাছাড়া পুরো ব্যাপারটা তো এক ধরণের সময়ের অপচয়। এখন আপনাকে যদি জানাই, আপনার এই অপেক্ষার অসহায়ত্ব দূর করা নিয়েও ব্যাপক রিসার্চ হয়েছে !

ব্যাংক, সুপারমার্কেট কিংবা অন্য যে কোন জায়গায় অপেক্ষার সময় কমিয়ে আনার জন্য কোন লাইনটিকে বেছে নিতে হবে, সে ব্যাপারে বিশেষজ্ঞরা কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। তার মধ্য থেকেই কয়েকটি জানাচ্ছি-

১. শপিং ব্যাগ ভরা যেসব ক্রেতাদের, তাদের পিছে দাঁড়ান

শুনতে উলটো শোনালেও গবেষণায় দেখা গেছে এটাই সত্যি! উদাহরণস্বরূপ- হিসেব করে বের করা যায়- ৪ জন মানুষের একটা লাইন, যারা প্রত্যেকে ২০ টি করে আইটেম কিনেছেন- তাদের সে লাইন প্রসেস হতে প্রায় ৭ মিনিটের মত লাগে। অথচ ১ জন মানুষ, যিনি ১০০টার মত আইটেম কিনেছেন, তার সব আইটেম প্রসেস হতে সময় লাগে প্রায় ৬ মিনিট। মানে, সময় সেইভ।

 

২. ডানে না গিয়ে যখনই সম্ভব বামে যানঃ

যেহেতু অধিকাংশ মানুষই ডানহাতি, সুতরাং তারা ডানদিকমুখীই থাকে বেশিরভাগ সময়। তাই অপশন থাকলে ডানে না গিয়ে বামে যান।

৩. সামনের কাস্টমার কি কিনেছেন সেটা খেয়াল করুন।

আপনার সামনে কয়জন কাস্টমার দাঁড়িয়ে আছে, সেটা যেমন গুরুত্বপূর্ণ, সাথে সে সব কাস্টমারদের বয়স এবং তাদের কেনা জিনিসগুলোও খেয়াল করাটা জরুরি। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়- একজন প্রবীণ কাস্টমার হয়তো তাঁর ডেবিট/ ক্রেডিট কার্ডটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে একজন তরুণের মত দক্ষ না-ও হতে পারেন। আবার কয়েকটি একই ধরণের আইটেম প্রসেস করতে যতটা সময় প্রয়োজন, ভিন্ন ধরণের একই সংখ্যক আইটেম ক্লিয়ার করতে তার থেকে বেশি সময় লাগবে- এটাই স্বাভাবিক। পাচটা পেপসি ক্লিয়ার করতে ক্যাশিয়ারের যে সময় লাগবে, দু’টো পেপসি, দু’টো চিপস এবং এক কেজি সবজি ক্লিয়ার করতে নিঃসন্দেহে তার থেকে বেশি সময় প্রয়োজন।

 

৪. এমন লাইন বাছাই করুন যেটার জন্য কি না কয়েকজন ক্যাশিয়ারের আছে

গবেষণায় পাওয়া গেছে- যেখানে একটি লাইনের জন্য কয়েকজন ক্যাশিয়ারের কাছে যাওয়ার সুযোগ থাকে- সে লাইনটি খুব দ্রুত শেষ হয়। যদিও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সুপারমার্কেটগুলোতে একটি লাইনের জন্য একটাই ক্যাশিয়ার ডেস্ক থাকে, যে পদ্ধতিটা তুলনামূলক ধীরগতির।

৫. যেসব লাইন কোন দেওয়াল, শেলফ ইত্যাদি বাধার কারণে অন্যদিকে ঘুরে কাউন্টারে গিয়েছে, সে লাইনগুলো এড়িয়ে চলুন।

৬. এছাড়াও লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষার সময় কমাতে আপনি আরো যা যা করতে পারেন-

  • বার কোডগুলো নিজের দিকে না রেখে ক্যাশিয়ারের দিকে রাখা
  • কাপড়ের ক্ষেত্রে হ্যাঙ্গার সরিয়ে ট্যাগগুলো খুলে রাখা
  • পুরুষ ও নারী ক্যাশিয়ারের ক্ষেত্রে নারী ক্যাশিয়ারকে প্রাধান্য দেওয়া ইত্যাদি

 

মনে রাখতে হবে- লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করার এ পুরো ব্যাপারটি অনেকখানিই মানসিক ! পরীক্ষা করে দেখা গেছে- মানুষকে যদি দ্রুত এগুচ্ছে এমন একটা লম্বা লাইন এবং ধীরে এগুচ্ছে এমন কোন ছোট লাইনের মধ্যে বেছে নিতে বলা হয়- তবে প্রায় ক্ষেত্রেই মানুষ ছোট লাইনটাকে বেছে নেয়; যদিও এ দুই ক্ষেত্রেই লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষার সময়টুকু প্রায় সমান। আবার আপনি যদি অপেক্ষা করার এ সময়টাতে অন্য কোন দিকে ব্যস্ত থাকেন (যেমন- বই পড়া) সেক্ষেত্রে আপনার সময়ও দ্রুত কেটে যাবে বলে প্রমাণিত।

সব মিলিয়ে- অন্য নানা বিষয়ের মত এক্ষেত্রেও মানসিকভাবে ইতিবাচক থাকতে পারাটা খুব জরুরি।  

সূত্রঃ নিউইয়র্ক টাইমস

 

Rizvan
পেশাতে মার্চেন্ডাইজার। আর লেখাপড়াটাও কাপড় নিয়েই, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার। পেশা আর প্যাশন দুই সুবাদেই বিশ্ববিখ্যাত সব brands, themes আর upcoming trends নিয়ে আমাকে খোঁজ রাখতে হয়। ভাবছি, why not I introduce such forecasting to our audience ! এই চিন্তা থেকে Simple, easy আর super communicative এত্তগুলো টিপস, আইডিয়া আর সাজেশানস নিয়ে সাজানো All About Clothing ।

No comments

Leave a Reply

Social Counter

  • 5 posts
  • 177 comments

Inspirations